ঢাকা

চৌদ্দগ্রামে গভীর রাতে ঘুমন্ত মা-ছেলেকে কুপিয়ে হত্যা

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে ঘুমন্ত মা-ছেলেকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। মঙ্গলবার (৪ জুলাই) দিবাগত রাতে উপজেলার পাঁচড়া এলাকার বেপারী বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- নিপা আক্তার (২৭) ও তার আট বছর বয়সী আলী আহসান মুজাহিদ। নিপা আক্তারের স্বামী আনোয়ার হোসেন দুবাই প্রবাসী।

পুলিশ মা ছেলের লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। বুধবার (৫ জুলাই) সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেন চৌদ্দগ্রাম থানার ওসি শুভ রঞ্জন চাকমা। তিনি বলেন, মা-ছেলেকে কুপিয়ে হত্যার খবর পেয়ে নিহতদের লাশ উদ্ধার করে থানায় আনা হয়েছে।

আনোয়ার হোসেনের ভাইয়ের ছেলে মঈনুল হাসান শুভ (২২) এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে বলে দাবি নিহত নিপা আক্তারের পিতা জালাল আহমেদের।

তিনি বলেন, আনোয়ার হোসেনের সঙ্গে তার ভাই মঈনুল হোসেন শুভর সম্পত্তি নিয়ে বিরোধ রয়েছে। পূর্ব থেকে বিরোধের জেরধরে এ হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়েছে।

জালাল আহমেদ বলেন, মঙ্গলবার রাত ৯টায় নিপা আক্তার ছেলে আলী আহসান মুজাহিদকে নিয়ে মামা শ্বশুর আজিজুল ইসলামের বাড়িতে দাওয়াত খেতে যান। ধারণা করা হচ্ছে, এ সুযোগে হত্যাকারী ঘরের ভেতর প্রবেশ করে নির্মাণাধীন টয়লেটে লুকিয়েছিল।

রাতে ঘরে ফিরে নিপা ছেলেকে নিয়ে ঘুমিয়ে পড়লে আনুমানিক ৩টার দিকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে তাদের গুরুতর জখম করে। তাদের চিৎকার শুনে লোকজন ছুটে এসে মুজাহিদ ও তার মা নিপা আক্তারকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। পরে কর্তব্যরত চিকিৎসক নিপাকে মৃত ঘোষণা করেন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় আলী আসান মুজাহিদকে ঢাকা নেওয়ার পথে মারা যান। খবর পেয়ে পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

চৌদ্দগ্রাম থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আলী আশ্রাফ জুয়েল জানান, নিহত নিপার মাথা ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে এবং আলী হাসান মুজাহিদের পেটে কাটা ও আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

সার্কেল এএসপি (চৌদ্দগ্রাম) জাহিদ হোসেন জানান, পারিবারিক বিরোধের কারণে এ হত্যাকাণ্ড। এ ঘটনায় আনোয়ার হোসেনের ভাই মীর হোসেনের দুই ছেলে মঈনুল হাসান শুভ (২২) ও আবদুল্লাহ শাহেদকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তদন্তের স্বার্থে বিস্তারিত পরে জানানো হবে।

 

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button