অন্যান্যবরিশালসারাদেশ

বাকেরগঞ্জের রঙ্গশ্রী ইউপি’র দুই ডিলারের চাউল চুরি বন্ধ!

আত্মশুদ্ধির মহৎ উদ্যোগ মনে হলেও রয়ে গেছে সন্দেহ-সংশয়!

।। নিজস্ব প্রতিবেদক ।।

বরিশাল বাকেরগঞ্জের রঙ্গশ্রী ইউনিয়নের দুজন ডিলার চাউল চুরি বন্ধ করে দিয়েছেন। ২০২৩ সালের নভেম্বর থেকে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ১৫ টাকা কেজি দরের ৩০ কেজির সাথে ২০০ গ্রাম ঘাটতি চাউল দেয়া হয়েছে। উল্লেখিত ইউনিয়নের ১নং ফলাঘর ওয়ার্ডের কালীগঞ্জ বাজারের উত্তর মাথায় অবস্থিত গোডাউনের ডিলার ‘মাহবুবুর রহমান’ এবং একই বাজারের দক্ষিণ মাথায় অবস্থিত গোডাউনের ডিলার ‘জাহিদ হাসান’ প্রথম এই উদ্যোগ নিয়েছেন।

উল্লেখযোগ্য বিষয় হচ্ছে- ‘এর আগে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির (ওএমএস) ১৫ টাকা কেজি দরের চাউল বিতরণ করার সময় নয়ছয় করা হতো। ভোক্তাদের নিকট থেকে বস্তা রেখে দিতেন ডিলাররা। বস্তা রেখে দেয়ায় ২০টাকা দিয়ে বস্তা কিনতে গিয়ে ভোগান্তিতে পড়তেন ভোক্তারা। এছাড়া ৩০ কেজির সাথে ২০০ গ্রাম ঘাটতি চাউল দেয়ার নিয়ম থাকলেও ভোক্তারা পেতেন ২৬/২৭ কেজি। নিয়ম-কানুনের তোয়াক্কা না করে বস্তা খুলে চাউল পরিমাপ করা হতো বালতি দিয়ে’। ভোক্তাদের ঠকিয়ে চাউল আত্মসাতের প্রতিবাদ করলে নাজেহাল করা হতো।

এ বিষয়টি নিয়ে মানুষের মধ্যে মিশ্রপ্রতিক্রিয়া লক্ষ্য করা গেছে। আপাতঃ দৃষ্টিতে বিষয়টি আত্মশুদ্ধির মহৎ উদ্যোগ মনে হলেও অধিকাংশ মানুষের মধ্যে রয়ে গেছে সন্দেহ-সংশয়! অনেকেই দাবী করছেন, ডিলারদের অনৈতিকতার কারণে সৃষ্ট জনমনের বিরুপধারণা ঢাকতে ‘‘নতুন ফন্দি এঁটেছেন দুষ্কৃতকারীরা’’।

সংশ্লিষ্ট ডিলাররা নিজেদের অতীতের ভুল শোধরানোর কথা বললেও অধিকাংশের দাবী বিষয়টি গরীবের চাউল ‘‘আত্মসাৎকারীদের নতুন কৌশল’’। হঠাৎ করে একই স্থানের দুজন ডিলারের একযোগে এধরণের শুভবুদ্ধি উদয় হওয়ায় জনমনে সন্দেহ তৈরি হয়েছে। দেখা দিয়েছে মিশ্রপ্রতিক্রিয়া ।

অপরদিকে, উল্লেখিত ঘটনা মানুষের মুখেমুখে ছড়িয়ে পড়ার পাশাপাশি অধিকার আদায়ের দাবী তুলেছেন ‘ভুক্তভোগী ভোক্তারা’। তারা বলছেন, ‘ভুল শোধরানো, আত্মশুদ্ধি, নতুন কৌশল কিংবা অন্য যা-ই হোক- চলতি মাসের (নভেম্বর ২০২৩) আগ পর্যন্ত যে পরিমান চাউল আত্মসাৎ করা হয়েছে, তা ফেরত দেয়া হোক। এছাড়া চাউল আত্মসাৎকারী সংশ্লিষ্ট ডিলারদের অতীত এবং বর্তমানের সকল অপকর্মের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করেছেন ভুক্তভোগীরা। তারা উল্লেখ করেন- ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার উগ্যোগ বাস্তবায়ন নিয়ে যারা লুটপাটে মেতেছে, তাদের কঠোর বিচার হওয়া উচিৎ’।

পাদটীকাঃ (পড়তে চোখ রাখুন- ‘‘চাউল চোর সিন্ডিকেটের অন্যতম হোতা ‘কুলি বারেক’ এর দৌরাত্ম এবং নেপথ্যের কাহিনী’’।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button